‌অস্ট্রেলিয়াকে সাত উইকেটে পরাস্ত করে ওয়ানডে দুই-একে সিরিজ জিতল ভারত

নিউজ ডেস্ক : রবিবাসরীয় চিন্নাস্বামী সাক্ষী থাকল ‘হিটম্যান শো’য়ের। সঙ্গ দিলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলিও। আর রোহিত–বিরাটের দাপটেই কার্যত দর্পচূর্ণ হল অস্ট্রেলিয়ার। প্রথম ওয়ানডে হারলেও, পরপর দু’‌টি ম্যাচ জিতে ২–১ ব্যবধানে সিরিজ পকেটে পুরলেন বিরাটরা। সিরিজের শেষ ম্যাচ ৭ উইকেটে জিতল টিম ইন্ডিয়া।

প্রথম ম্যাচে লজ্জাজনকভাবে হারের পর কম সমালোচনা শুনতে হয়নি বিরাটদের। অনেকে আবার কঠিন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে টিম ইন্ডিয়ার যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলছিলেন। কিন্তু এদিন যেন সেই সমস্ত সমালোচনার জবাব দিল বিরাটের ভারত। ব্যাট–বল উভয় বিভাগেই অসিদের পরাস্ত করলেন রোহিতরা। এদিন টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। অসিদের হয়ে ১৩২ বলে ১৩১ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেললেন স্টিভ স্মিথ। প্রায় তিনবছর পরে আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটে শতরান করলেন স্মিথ। একই সঙ্গে তিনি আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটে চার হাজার রানের গণ্ডিও পেরিয়ে গেলেন। তবে স্মিথকে সেভাবে সাহায্য করতে পারেননি আর কোনও অসি ব্যাটসম্যান। লাবুশানে (‌৫৪) এবং ক্যারে (‌৩৫)‌‌ ছাড়া অন্য কেউ রান করতে পারেননি। যার ফলে শুরুটা দুর্দান্ত করেও শেষপর্যন্ত ২৮৬ রানেই থামতে হয় অসিদের।

২৮৭ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালই করেছিলেন রাহুল–রোহিত জুটি। কিন্তু দলের ৬৯ রানের মাথায় ফিরে যান রাহুল (‌১৯)। কিন্তু এরপরই চিন্নাস্বামী সাক্ষী থাকল রোহিত–কোহলি জুটির দুরন্ত ব্যাটিংয়ের। শুরুটা করেছিলেন রোহিত। আর শেষটা করলেন বিরাট। দুই তারকার সামনে অসহায়ভাবে আত্মসমর্পণ করল অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বখ্যাত পেস আক্রমণ। কেরিয়ারের ২৯তম শতরান করলেন রোহিত। আর বিরাট দ্রুততম অধিনায়ক হিসেবে ৫ হাজার রানের গণ্ডি পেরলেন। এর আগে এই রেকর্ড ছিল টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির দখলে। এর পাশাপাশি ওয়ানডেতে মোট রানের নিরিখেও ধোনিকে টপকে গেলেন বিরাট। শেষদিকে শ্রেয়স আইয়ারও বেশ মারকুটে ইনিংস খেললেন। ফলে সহজেই নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছে গেল ভারত। ১৫ বল বাকি থাকতেই সাত উইকেটে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছে যায় ভারত।