অমানবিক চিত্র! বিজেপি বামফ্রন্ট কংগ্রেসের বিক্ষোভ, শ্রমিকদের স্কুলে রাখা যানে না- রামপুরাহাট

নিউজ ডেস্ক : পরিযায়ী শ্রমিকদের গ্রামের থাকতে দিচ্ছে না গ্রামবাসী। গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোয়ারিন্টিন সেন্টার করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ প্রদর্শন করল গ্রামের বাসিন্দারা। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের রামপুরহাট থানার খরুন গ্রাম পঞ্চায়েতের খরুন গ্রামে।  জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রামপুরহাট-১ ব্লকের খরুন গ্রাম পঞ্চায়েতের খরুন গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোয়ারিন্টিন সেন্টার করার জন্য বিডিও অফিস থেকে আধিকারিকরা গেলে, গ্রামবাসীরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। সকাল সাড়ে আটটা থেকে ঘন্টা খানেক তাঁরা বিক্ষোভ দেখান। তারপর গ্রামে ফাড়ি ঢোকা রুখতে গ্রাম ঢোকার মুখে বাঁশের বেড়া দিয়ে দেওয়া হয় গ্রামবাসীদের তরফে।

শুধু তাই নয়, “ এখানে কোয়ারিণ্টিন কেন্দ্র হতে দেব না, গ্রামবাসী” লেখা পোস্টার টাঙিয়ে দেওয়া হয়। শুধু তাই নয়, ওই বেড়াতে কংগ্রেস, সিপিএম, তৃণমূল, বিজেপি তিনটি দলের পতাকা টাঙিয়ে দেওয়া হয়। এব্যাপারে রামপুরহাট- ১ ব্লকের বিডিও দ্বিপান্বিতা বর্মণকে ফোন করা হলে, তিনি বলেন, আমি জেলায় এক মিটিংয়ে ব্যস্ত আছি। পরে আমি আপনাকে ফোন করছি। তারপর খরুন গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান নমিতা দাসকে ফোন করা হলে, তিনি বলেন, “ বিডিও অফিস থেকে আধিকারিকরা খরুন গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোয়ারিন্টিন সেন্টার করার জন্য এলে, গ্রামবাসীরা বাধা দেন। তারপর বিষয়টি বিডিওকে জানাবেন বলে তারা ফিরে যান। গ্রামবাসীরা চান না, ওই গ্রামে কোন কোয়ারিন্টিন সেন্টার হোক। আমি সেটা জানিয়েছি। এখন বিডিও সাহেবার সিদ্ধান্ত”। গ্রামের বাসিন্দারা অবশ্য জানান, তারা কোনভাবেই গ্রামে কোন কোয়ারিন্টিন সেন্টার হতে দেবেন না। গ্রামে কোন আক্রান্ত নেই। বহিরাগতদের রাখা হলে, গ্রামে করোনার প্রাদুর্ভাব ঘটবে।

বিক্ষোভ বা প্রতিবাদ কাদের বিরুদ্ধে করছেন গ্রামবাসী ভেবে দেখনি হয়তো? শাসক দলের বিরোধিতা করতে গিয়ে, অমানবিক হয়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ করছে বিরোধীরা। যাদের বিরুদ্ধে তিন পাটি মিলিত ভাবে রাস্তাতে নেমেছেন সেই মানুষ গুলো উক্ত স্কুলে পড়াশুনা করেছে এমনও আছেন। পেটের তাগিদে রুটি রুজির টানে বাইরে গিয়ে পরিযায়ী হয়েছে। সুধু রামপুরহাট নয় রাজ্যের বিভন্ন জায়গাতে এমন বিক্ষোভ চলছে, আজ উত্তর ২৪ পরগনার বারাসাত কলেজে পরিযায়ীদের রাখা যাবেন বলে যোশড় রোড অবরোধ হয়। এই রোড অবরোধের মূল বিজেপি সর্মথকরা। নিজেদের এলাকা বা পঞ্চায়েতর ব্যক্তিরা নিজেরই স্কুলে থাকতে পারবে না, এটা কেমন বিধান। এর থেকে করোনা লড়ায়ে বিরোধীরা হিংসার রাজনীতি করছে। একটি বিষয় উলেখ্য, বিভন্ন জায়গাতে কোয়ারিন্টিন কেন্দ্রকে সামনে রেখে বিক্ষোভ হচ্ছে তার মূল আছেন বিজেপি সমর্থিত হিন্দুরা।