পাঞ্জাবের একটি গ্রামের মুসলিমরা ৩৩ টন গম দান করলেন স্বর্ণ মন্দিরের লঙ্গরখানাতে,

নিউজ ডেস্ক : ধর্মের মূল মন্ত্র মানবতা, সেটাই দেখা গেল সংকটময় অবস্থাতে। পাঞ্জাবের সঙ্গরুর জেলায় মালেরকোটলার মুসলিমরা অমৃতসরের স্বর্ণ মন্দিরের লঙ্গরখানাতে ৩৩ টন গম দান করলেন। লঙ্গরখানায় মানুষের খাবার জন্য এই গম তুলে দেওয়া হয় মন্দির কর্তৃপক্ষের হাতে। আনুষ্ঠানিক ভাবে এই গম তুলে দেন ‘শিখ-মুসলিম সাঁঝা মঞ্জ’-এর সভাপতি নাসির আখতার।

অশোক সিংহ গারচা নামে এক ব্যক্তি গতকাল, শুক্রবার একটি টুইট করেছেন। ছবিটিতে যে তারিখ দেখা যাচ্ছে সেটিও শুক্রবারের। গম নিয়ে আসার প্রতিনিধিদের স্বর্ণ মন্দিরে অভ্যর্থনা জানান সেখানকার চিফ ম্যানেজার মুখতিয়ার সিংহ। তাঁদের হাতে সিরোপা এবং সাম্মানিক পোশাক তুলে দেওয়া হয়। ছবির সঙ্গে পোস্টে অশোক লিখেছেন এই গম দান করার কথা। আর ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এক দল মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ লঙ্গরখানায় বসে খাচ্ছেন। অশোক জানিয়েছেন, গম দান করতে আসা মুসলিম ভাইরা লঙ্গরখানার খাবারে অংশ নিয়েছেন। আর তাঁদের খাবার পরিবেশন করছেন শিখ সেবাদাররা। সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরা হয়েগেছে উক্ত দানের খবর।

প্রতিটি ধর্মের মূল মন্ত্র মানব সেবা। সেই মানব কল্যানে ধর্মের প্রাচীর ভেঙ্গে একত্রিত একেঅপরে। করোনা লকডাউনে মানুষের খাবারের সংকট দেখা দিয়েছে। বিভন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় সংগঠন খাদ্যসামগ্রী বিতরনের সাথে সাথে বিভন্ন জায়গাতে লঙ্গরখানা খুলে নিত্য রান্না করা খাবার পরিবেশন করছেন। করোনা লকডাউনে মুসলিম ব্যক্তিবর্গ ও বিভন্ন সংগঠন অসহায় মানুষ পাশে দাঁড়িয়েছে, তার ছবি ও ভিডিও আমার সোশ্যাল মিডিয়া এবং মিডিয়াতে দেখা গেছে। একটা গ্রাম থেকে ৩৩ টন গম দান করা করা একটি বিরল উদাহারন। করোনা ছড়ানো নিয়ে মুসলিমরা লাঞ্ছনা, অপমান, অপবাদ, অত্যাচারকে দূরে সরিয়ে আজ দেশের সেবাতে নিয়োজিত!