ফ্রান্সের সন্ত্রাসী হামলার ছবি ভারতে, প্রকাশ্যে রাস্তাতে কিশোরীর গলা কেটে খুন অনিলের

নিউজ ডেস্ক :  ফ্রান্সের রাস্তাতে ছুরি দ্বারা সন্ত্রাসী ঘটনার অনুরূপ ঘটনা ভারতেও। জনবহুল রাস্তাতে বচসা, তার পর ছুরি দিয়ে কিশোরীকে গলা কেটে খুন। ভিড় রাস্তায় এই ধরনের ঘটনায় প্রথমে কিছুটা অবাক হয়ে যান সবাই। তারপরে অভিযুক্ত যুবক অনিলকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ঘটনা অন্ধপ্রদেশের বিশাখাপত্তনামে। একলাতে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। নারকীয় সন্ত্রাসী ঘটনাটি ৩১ অক্টোবর শনিবারের।

শনিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমে। জানা গিয়েছে, মৃত কিশোরীর নাম বরলক্ষ্মী, তাঁর বয়স ১৭ বছর। প্রত্যক্ষদর্শীরা পুলিশকে জানিয়েছেন, রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল ওই কিশোরী। অনিল তাঁকে অনুসরণ করছিল। গাজুওয়াকা এলাকার সুন্দরায়া কলোনিতে সাইবাবা মন্দিরের সামনে হঠাৎই কিশোরীর পথ আটকে দাঁড়ায় অনিল। এর পরই দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। হঠাৎই অনিল একটি ধারালো অস্ত্র বার করে কিশোরীর গলায় চালিয়ে দেয়। তার পর সেখান থেকে চম্পট দেয় অনিল। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় কিশোরীর। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অনিলকে গ্রেফতার করে তারা।

আচমকা এই ঘটনায় কিছুটা অবাক হয়ে যান আশেপাশের মানুষরা। যদিও তারপরেই অনিলকে পাকড়াও করে পুলিশের হাতে তুলে দেন তাঁরা। অনিলকে নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ। জেরায় অনিল নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেছে বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে বরলক্ষ্মীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিল অনিল। কিন্তু কিশোরী তা প্রত্যাখ্যান করেন। সেই রাগেই বরলক্ষ্মীর গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে সে। অবশ্য ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এই ঘটনার পিছনে আর কেউ রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগন্মোহন রেড্ডি কিশোরীর পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। পাশাপাশি, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে মুখ্যসচিব এবং রাজ্য পুলিশের ডিজিকে নির্দেশ দিয়েছেন।