অগ্নিপথ আন্দোলনে পুলিশের গুলিতে মৃত্যু তেলেঙ্গানাতে, যখম আট, সারা দেশে ৩০০ ট্রেন বাতিল!

নিউজ ডেস্ক : কেন্দ্রের অগ্নিপথ প্রকল্পের বিরোধিতায় অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি সমগ্র দেশে। তেলঙ্গানায় প্রথম মৃত্যু। শুক্রবার সকালে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল সেকেন্দ্রাবাদ রেল স্টেশনে। জানা গিয়েছে, উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে এদিন স্টেশন চত্বরে গুলি চালায় রেল পুলিশ। ঘটনায় এক ব্যক্তির গুলিবদ্ধ হয়ে মৃত্যুর খবর মিলেছে। আহত হয়েছেন আরও আটজন বিক্ষোভকারী।

অন্যদিকে, সেকেন্দ্রবাদ স্টেশনে ছাত্রছাত্রীদের বিক্ষোভের জেরে নষ্ট হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা, একাধিক আসবাবপত্র। মূলত বিক্ষোভে সামিল হয়েছে NSUI এর ছাত্রছাত্রীরা।

তেলঙ্গানার পাশাপাশি শুক্রবার সকাল থেকই উত্তপ্ত বিহার। লক্ষমিনিয়া রেল স্টেশনে অবরোধ করেন বিক্ষোভকারীরা। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় রেলওয়ে ট্র্যাকে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। বেগুসরাই স্টেশনেই আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। রেললাইনে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হচ্ছে। আরা জেলার কুহাদিয়া স্টেশনের চিত্রটাও একইরকম। ঔরঙ্গাবাদে হাজারের উপর বিক্ষোভকারীরা ২ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করেছে। বিশাল পুলিশ বাহিনী নেমেছে এলাকায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে ৩৮টিরও বেশি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে বিহারে। গোটা দেশে বাতিল হয়েছে ১০০টিরও বেশি ট্রেন। এছাড়াও প্রায় ২০০টি ট্রেনের রুট বাতিল হয়েছে।

এদিকে, বিহারের দক্ষিণ চম্পারন জেলায় বেট্টিয়ায় রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী রেনু দেবীর বাড়িতে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে। হরিয়ানার বল্লভগড়ে বিক্ষোভের আঁচ প্রশমিত করতে ইন্টারনেট পরিষেবা সাময়িক বন্ধ রেখেছে ফরিদাবাদ প্রশাসন। বিক্ষোভের আঁচ প্রশমিত করতে হরিয়ানাতে কার্ফু ঘোষণা করেছে সরকার। উত্তরপ্রদেশের বালিয়া স্টেশনেও ট্রেনে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। বিক্ষোভকারীদের রুখতে কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে যোগী সরকারের পুলিশ। পাশাপাশি, আগ্রা-লখনউ এক্সপ্রেসওয়েতেও যান চলাচল স্তব্ধ হয়ে পড়েছে।

বিক্ষোভ অবরোধ শুরু হয়েছে বাংলাতেও। উত্তর প্রদেশ, বিহার, রাজস্থান, মধ্য প্রদেশ, হরিয়ানা, গুজরাট, মহারাষ্ট্র উক্ত জেলা গুলিতে ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগ চলছে। অবস্থা ভয়ানক!