গর্ভযন্তনাতে ছটফট করা মহিলাকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি, মানবিকতা নিদর্শন পুলিশ অফিসার সৌভিকের

  নিউজ ডেস্ক : ব্যতিক্রমী পুলিশ! মানবিকতার নতুন রূপ দেখা গিয়েছে কলকাতা পুলিশের মধ্যে। গতকাল, মঙ্গলবার, দুপুর একটা নাগাদ নিয়মমাফিক রাউন্ডে বেরিয়েছিলেন তিলজলা ট্র‌্যাফিক গার্ডের অ্যাডিশনাল ওসি সৌভিক চক্রবর্তী। বাসন্তী হাইওয়ের ওপর চৌবাগার কাছে হঠাৎ তাঁর নজরে পড়ে, রাস্তার ধারে শুয়ে অসহ্য গর্ভযন্ত্রণায় ছটফট করছেন এক মহিলা। কয়েক মিনিটের মধ্যে ঘটনাস্থলেই একটি পুত্রসন্তানও প্রসব করেন তিনি।

বিন্দুমাত্র দ্বিধা না করে মা এবং সদ্যোজাত শিশুপুত্রকে গাড়িতে তুলে চিত্তরঞ্জন ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের দিকে ছোটেন সৌভিক। ট্র‌্যাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ করে বলেন তাঁদের যাত্রাপথের প্রতিটি ট্র‌্যাফিক সিগন্যাল খোলা রাখতে, যাতে চিত্তরঞ্জন হাসপাতাল পর্যন্ত তৈরি করা যায় ‘গ্রিন করিডর’, যাতে একটি বাড়তি মিনিটও নষ্ট না হয়। যেতে যেতেই ফোনে যোগাযোগ করেন মহিলার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও। হাসপাতালে পৌঁছে নির্দিষ্ট বিভাগে মহিলার ভর্তির ব্যবস্থা করাই শুধু নয়, প্রয়োজনীয় ওষুধপত্রও কিনে দিয়ে তবেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন সৌভিক। শিশুটিকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালের পেডিয়াট্রিক বিভাগে। আনন্দের কথা, মা-ছেলে দু’জনেই এখন সম্পূর্ণ সুস্থ।

পুলিশের এমন কর্ম ও ব্যবহার হলে সমাজে পুলিশ সম্পর্কে সাধারন মানুষের নেগেটিভ ভাবমূর্তি পরিবর্তন হয়ে সদর্থক ধারণা জন্মগ্রহন করবে।